shondikkhon
কবিতা

সন্ধিক্ষণ – শাহিনুর রহমান

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

এক পূর্ণ মিলনের অপেক্ষায় ক্ষয়ে ফেলেছি স্বর্ণপ্রসূ তারূণ্য। 

কাঁচা বয়সের সম্ভোগ রেখে যাপন করেছি স্বগৃহ অরণ্য। 

অবাধ্য অভিলাষে তীব্র মন্বন্তরেও অন্ত-ঘরেই ছিলে সাজি।  

শত তপস্যার ফলে শুদ্ধতম সহচরী হয়ে উদয় হলে আজই।

আজ কোনো বাঁধা নেই; নেই কোনো শাস্ত্র ভাঙনের বিধি।

প্রেমো ঘাটে এসেছে জোয়ার টলমল অতি সুধাময়ী নিধি।

এই মধুকরে মিলবো দুজন বাজিয়ে প্রাণেশ্বর রাগিণীর বিন।

মিটিয়ে নেবো যজ্ঞের খাতায় আছে যতো বিগত তিথির ঋণ।

তল্লাট জুড়ে দুরন্ত ঝড়ে নেমে আসুক অভিগম নিদারুণ রঙ।

তোমাতেই সমর্পিত হোক আমার পুষে রাখা সকল অহং।

উষ্ণ ভারী শ্বাস আর কম্পিত ঠোঁটে প্রগাঢ় অনুভূতির গহন। 

ভাবতরঙ্গের ফল্গুধারায় মাতোয়ারা হোক নিরাভরণ স্নান।

অমরাবতীর রঙিন আভায় নামুক প্রমিত নিগূঢ় অঙ্ক। 

নিমগ্ন হৃদয়ের মুগ্ধতায় ভেসে আসুক সম্মোহনী কলঙ্ক। 

প্রতিভাসের পরতে পরতে গাঁথা হোক ছন্দময় উপাখ্যান। 

জমে আছে যতো অবাধ্য আকুলতা হোক তার অবসান।

বৈশাখী এলো কেশে চোখ বেঁধে চোখে লীলাময়ী রঙ্গ। 

কোমল থুতনি থেকে স্নিগ্ধ চরণ রোমন্থনে পুরোটা অঙ্গ। 

স্নায়ুর আবেশে ধমনীর রোষে বন্ধুর পথে মোহময় নির্যাস। 

মনের সাথে মন মিলিয়ে কায়াজুড়ে অনুবন্ধী লগ্ন বিলাস।

মুনি ঋষির ধ্যানে মহাকালের পসরা আত্মশুদ্ধির অভিলাষ।

চুড়ান্ত রতির জলন্ত আগুনে দগ্ধ হোক কলুষিত রিপুর আবাস।

অন্তর নিংড়ানো রাগে অদমিত বাগ অন্তঃসারের অচির তলে। 

ভিতর বাহির সমস্ত ইন্দ্রিয় স্বতোবৃত্ত এক বিন্দুতে মেলে।

গম্ভীর মাদকতায় প্রমত্ত তনু-মন তরল ঝাঁঝের বিষে,

নির্জনবাসে নিজেকে হারিয়ে অন্তঃঘরে মিলুক দিসে।

নীলিমার বুকে নৈশব্দ অন্বেষণ নিষ্কলুষ অনাবিল সুখ।

গভীর নিস্তব্ধতায় নৈসর্গিক আভরণ শান্ত-প্রাণ ধরনীর মুখ।

আরাধনা শেষে যাপিত তলে নিঃসংশয় নাড়াবুনে লিজ।

লোকালয় জুড়ে রোপিত হোক অঙ্কুরিত সভ্যতার বীজ।

জনম জনম একান্ত বাসনায় বহমান এই বসন্তের মোহ।

অস্তিত্বের পরিসরে বিস্তীর্ণ হোক দুরন্ত সবুজের সমারোহ।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Similar Posts

2 Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *