manush othoba tar motoi
কবিতা

মানুষ অথবা তার মতোই – মুন্না রহমান

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

শালার,কেউ থামবার চায় না

ভিত্রে ভিত্রে ছটফট করে ফড়িঙের মতো

লাঠিতে আঠা লাগাইয়া ধরতে গেলেই

আরো জোরে ছোটে,প্রাণপণে ছোটে

প্রাণের মায়ায় ছোটে

হাটু মোড়াইয়া মাথা গুজে-

বইসা থাকে,কুন্ডলী পাকায়,কান্দে ঘোঙাইয়া ঘোঙাইয়া

নিজের লগে অভিনয় করে

পাগলের মতো হাসে-

আবার লগে লগে সিগন্যালে পইড়া থাহা গাড়ির মতো ঠান্ডা হইয়া যায়

থাইমা থাইমা কান্দে,আবার হাসে

নিজেরে নিজে বিজয়ের মালা পড়ায়

খিলখিলাইয়া হাসে,ভাসে অহমিকায়

তারপর আসে ঘুটঘুইট্টা রাইতের আন্ধার

আশেপাশে কি জানি খুঁইজা বেড়ায়

পায় না! পইড়া থাকে চ্যাং দলা হইয়া 

বুকের ভিত্রে খালি শোঁ শোঁ শব্দ হুনে

হুনে, ভাঙ্গনের শব্দ

নদীর পাড়ের মতো,খুব জোড়ে ভাইঙ্গা পড়তাসে

ভিতরে কি যে এক জ্বালা নিয়া বাঁইচা আছে

কেউ কইবার পারে না 

শালার কেউ কইবার পারে না,কেউ না….


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *