khoniker ontornibash
কবিতা

ক্ষণিকের মনবাস – শাহিনুর রহমান

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ঝকঝক শব্দ সেদিন;

হয়ে উঠেছিল শ্রাব্য সুমধুর।

অদৃশ্য মায়ার ডোরে বেঁধেছিল ঘোর

অন্তঃযত আদিবাস ঘটেছিল ভাংচুর। 

অজ্ঞাত উদাসীনতায় পাড়ি দিয়েছিলাম,

অজানা ভালোবাসার অচিনপুর।

অচেনা পথ পরিবেষ্টিত বাতাবরণ

অনুভবে মিশে যায় অজস্র স্রোতকাল।

জীবনটা ভরে যায় পূর্ণতায়

আধো ধ্রুব আধো স্বপ্নজাল।

শুভ্র আলোকে স্নিগ্ধ চোখ জোড়ায়

ভেসে ওঠে এক আশ্চর্য কাকতাল।

আঁকাবাঁকা রেলপথ দু’ধারে বনস্পতি,

অলংকৃত করেছে পরস্পর।

এতো আলোক প্রকৃতির সাজ,

তুমিহীন সবকিছু শূন্য বালুচর।

আজন্মকাল তোমারি পথ চেয়ে,

আজ ঘটে গেলো অবসান শত অপেক্ষার।

একটা অজ্ঞাত সুগন্ধি অথচ চিরচেনা

সুরভিত করে চলেছে আলো বায়ু বাতাস।

যেটা উপভোগে শুধু নাসাগ্রন্থিই নয়,

আপাদমস্তক শরীরের প্রত্যেকটি কেশ কোষ আঁশ,

প্রত্যেকটি শিরা উপশিরা ধমনী 

প্রত্যেকটি শাশ্বত প্রশ্বাস,

এ যেন উন্মাদ এক মত্ত প্রয়াস।

নগণ্য আশা আর অতিকায় ন-বর্গীয় আশঙ্কায় জীর্ণশীর্ণ  মন।

অন্তঃকোষীয় দ্বিধা আর আত্মদ্রোহী দ্বন্দ্বে

নিঃশেষিত দিল ক্ষণেক্ষণ।

অটল শাসনে প্রচ্ছন্ন হৃদয়

সহে যায় এক নিদারুণ অন্তর্বেদন।

তুমি নারী,

অজান্তেই দিয়ে গেলে, নিরন্তর প্রাণের নির্যাশ।

এটাই প্রথম হয়তো এটাই শেষ,

এটাই যথেষ্ট যোগাতে মননশক্তি, সার্থক এক জীবনের বাস।


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *