amar duniyabi jannat
কথোপকথন ও চিঠিপত্র

আমার দুনিয়াবি জান্নাত – জেনি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

পৃথিবীতে আগমন তোমাদের হাত হাত ধরে। মুখ ফুটে আজও বলা হয়নি ভালোবাসি! কিছু সম্পর্ক প্রকাশভঙ্গীর মাধ্যমে হয়ত বুঝিয়ে দিতে হয় ভালোবাসি, বিনিময়ে অপর পক্ষ থেকে ভালোবাসা ফিরে আসে। কিন্তু বাবা মা! যেখানে কোনো প্রকাশভঙ্গীর ও প্রয়োজন পরে না। কোথাও পড়েছি, মা বুঝি আকাশের মতো হয়। আর সন্তান তার মেঘ। বৃষ্টির স্বচ্ছ ফোটাগুলোই বুঝিয়ে দেয় আকাশের গুরুত্ব ঠিক কতটা। শ্রেষ্ঠ তিন আমলের মাঝেও একটি মাতা-পিতার প্রতি সদাচার করা। প্রতিটি মানব সন্তান ই মুসলিম হিসেবে জন্মগ্রহণ করে, এরপর বাবা মাই তাদের অন্য ধর্মে ধর্মান্তরিত করেন। মহান আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতা’লার নিকট লক্ষ কোটি শুকরিয়া শত শত ধর্মের মাঝে আমাকে মুসলিম ঘরে জন্মানোর পরম সৌভাগ্য দান করার জন্য। আলহামদুলিল্লাহ। বাবা মার কাছেই তো দ্বীনের শিক্ষাটা পাওয়া। ছোট বেলায় বাবার মসজিদ-এ যাওয়া, মাকে সালাত আদায় করতে দেখা। স্রষ্টাকে তখন ও চিনতে শিখিনি হয়ত। তবে সেই যে ছোট্ট বেলা, মায়ের পাশে বসে খেলার ছলে সালাত আদায় করার চেষ্টা। সেই থেকেই তো অল্প অল্প করে দ্বীন কে বুঝতে শেখা আমার। মায়ের পায়ের নীচে জান্নাত আর বাবা হলেন জান্নাতের সেই দরজা। যেখানে ইসলাম আমাকে শেখায় তোমাদের গুরুত্ব ঠিক কতটা! সেখানে কিভাবে তোমাদের উপর আমার দায়িত্ব আমি ভুলে যাই বলো! জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময় আশেপাশে ফিরে দেখলে শুধু তোমাদের মুখখানা ই ভেসে আসে। হয়ত আমি আমার দায়িত্বটুকু সঠিকভাবে পালন করতে পারিনা, জানি এতে তোমাদের কোনো আক্ষেপ ও নেই। তবুও ভাবি, একদিন সময় করে বলবো “আব্বু আম্মু! ক্ষমা করে দিও। তোমাদের উপর করা সামান্য অসম্মানের আঁচ ও যে আমার রব পছন্দ করেন না। তোমাদের সাহায্য ছাড়া আমি কিভাবে তার নিকট পছন্দনীয় একজন হতে পারবো বলো!!”


  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Similar Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *